করোনায় কর্মহীন হয়ে অভাবের তাড়নায় সন্তান বিক্রি!

গোপালপুর প্রতিনিধি : টাঙ্গাইলের গোপালপুর উপজেলার নগদাশিমলা ইউনিয়নের সৈয়দপুর পূর্বপাড়া গ্রামের দিন মজুর শাহ আলম ও রাবেয়া দম্পতির তিন পুত্র সন্তান।

দিন মজুর স্বামীর উপার্জনে পাঁচজনের সংসার চলে না। তার মধ্যে করোনায় কয়েকমাস ধরে আমার স্বামী বেকার।

সংসারে বেশ কিছু ঋণ রয়েছে। পাওনাদাররা প্রতিদিনই সেজন্য তাগাদা দিচ্ছিলেন। হতাশায় স্বামী মাদকে আসক্ত হয়ে পড়ে।

এমতাবস্থায় পাওনা টাকা পরিশোধ ও সংসারের অভাব অনটনের ফলে তিন মাস বয়সী শিশুকে বাইশকাইল গৈজারপাড়া গ্রামের সবুজ মিয়া ও স্বপ্না দম্পতির নিকট ৪৫ হাজার টাকায় বিক্রি করে দেই।

কথাগুলো জানায় হতভাগ্য মা রাবেয়া বেগম।

বিষয়টি জানতে পেরে স্থানীয় প্রশাসন ১৬ দিন পর শুক্রবার (১৬ জুলাই) শিশুটিকে উদ্ধার করে মায়ের কোলে ফিরিয়ে দিয়েছেন।

অপরদিকে, গোপালপুর থানার ওসি মোশাররফ হোসেন জানান, সবুজ ও স্বপ্না দম্পতি নিঃসন্তান। তারা শাহ আলম-রাবেয়া দম্পতির অভাব অনটনের সুযোগ নিয়ে টাকার বিনিময়ে শিশুটি কিনে নেয়। আদালতের অনুমতি নিয়ে দত্তক নেওয়ার বিধান রয়েছে।

কিন্তু তারা সেটি করেনি। এমতাবস্থায় প্রশাসন সবুজ মিয়ার বাড়িতে অভিযান চালিয়ে শিশু আলহাজকে উদ্ধার করে মা রাবেয়া বেগমের কোলে পৌঁছে দেয়।

কেউ আগ্রহ প্রকাশ না করায় এবং মানবিক দিক বিবেচনায় থানায় কোন মামলা নেওয়া হয়নি।

এ ব্যাপারে গোপালপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা পারভেজ মল্লিক জানান, ঘটনার নেপথ্যে দারিদ্রতা। পরিবারটিকে সার্বিকভাবে সহায়তা দেয়া হচ্ছে।

রাবেয়া বেগমকে স্থানীয় একটি ক্লিনিকে আয়া পদে চাকরির ব্যবস্থা করা হয়েছে। নগদ অর্থ ও খাদ্য সহায়তাও দেয়া হয়েছে।

এ ব্যাপারে জেলা প্রশাসক আতাউল গনি জানান, ওই শিশুর যাবতীয় ভরণপোষণ ও লেখাপড়ার দায়িত্ব নেওয়া হবে। সম্পাদনা – অলক কুমার

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *