যুগধারা পত্রিকা ৯ম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উদযাপিত

নিজস্ব প্রতিবেদক : টাঙ্গাইল থেকে প্রকাশিক সাপ্তাহিক যুগধারা পত্রিকার ৯ম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী ও ১০ম বর্ষে পদার্পণ উপলক্ষে টাঙ্গাইল প্রেসক্লাবের বঙ্গবন্ধু অডিটোরিয়ামে আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে।

শনিবার টাঙ্গাইল প্রেসক্লাবের সভাপতি এ্যাডভোকেট জাফর আহমেদের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন টাঙ্গাইল পৌরসভার মেয়র এসএম সিরাজুল হক আলমগীর।

বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার কাজী নুসরাত এদীব লুনা, কালিহাতী উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মোজহারুল ইসলাম তালুকদার, দেলদুয়ার উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মাহমুদুল হাসান মারুফ, টাঙ্গাইল সাধারণ গ্রস্থাগারের সহ-সভাপতি খন্দকার নাজিম উদ্দিন।

অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন, সাপ্তাহিক যুগধারা’র সম্পাদক ও প্রকাশক এইচএম হাবিবুর রহমান সরকার।

আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিলে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন টাঙ্গাইল প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক কাজী জাকেরুল মওলা; ডেইলী স্টারের জেলা প্রতিনিধি মির্জা শাকিল; এনটিভি’র জেলা প্রতিনিধি মহব্বত হোসেনসহ টাঙ্গাইল প্রেসক্লাবের সদস্যরা।

এছাড়া আরো উপস্থিত ছিলেন, দি ডেইলী নেক্সটনিউজ পত্রিকার সম্পাদক ও প্রকাশক অধ্যক্ষ তোফাজ্জল হোসেন তুহিন; ‘রূপায়ন বাংলা’র সম্পাদক রশিদ আহমেদ আব্বাসী; দৈনিক নয়া দিগন্তের জেলা প্রতিনিধি মালেক আদনান; ভোরের পাতা’র জেলা প্রতিনিধি আব্দুস সাত্তার; দৈনিক আমার সংবাদের জেলা প্রতিনিধি রাইসুল ইসলাম লিটন; আমার বার্তা’র জেলা প্রতিনিধি জাহাঙ্গীর আলম; দৈনিক আমার সংবাদের কালিহাতী প্রতিনিধি শরিফুল ইসলাম; দৈনিক আমার সময়ের কালিহাতী প্রতিনিধি জাহাঙ্গীর আলম; যুগধারা’র ধনবাড়ী প্রতিনিধি সৈয়দ সাজন আহম্মেদ রাজু; নাগরপুর প্রতিনিধি আজিজুল হকসহ বিভিন্ন ইলেকট্রনিক মিডিয়ার ও প্রিন্ট মিডিয়ার সাংবাদিকবৃন্দ সহ বিভিন্ন শ্রেণি পেশার মানুষ উপস্থিত ছিলেন।

বক্তারা সাপ্তাহিক যুগধারা’র ৯ম বর্ষ পূর্তি ও ১০ম বর্ষে পদার্পণকে একটি ইতিহাস আখ্যা দিয়ে বলেন, গত ৯ বছরে যুগধারা লেখনির মাধ্যমে সাহসী সাংবাদিকতার স্বাক্ষর রাখতে সক্ষম হয়ে পাঠকদের আস্থা সৃষ্টি করেছে।

তারা আরো বলেন, আগামী দিনে যুগধারা সাংবাদিকতায় আরো গতিশীল সংবাদ পরিবেশন করে তার বৈশিষ্ট ‘সত্যের সন্ধানে অবিরাম’ শ্লোগানকে স্বার্থক করে তুলবেন এই প্রত্যাশা ব্যক্ত করেন।

করোনা সংক্রমণকালীন সময়ে সামাজিক দুরত্ব ও স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ করে আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল সংক্ষিপ্ত আকারে কেককাটার মাধ্যমে শেষ করা হয়। সম্পাদনা – অলক কুমার

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *