বৃহত্তর ময়মনসিংহ রিপোর্টার্স ফোরামের আত্মপ্রকাশ

নিজস্ব প্রতিবেদক : যাত্রা শুরু করলো বৃহত্তর ময়মনসিংহ রিপোর্টার্স ফোরাম (জিএমআরএফ)।

বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যমে জাতীয় পর্যায়ে কর্মরত বৃহত্তর ময়মনসিংহের ছয় জেলা ময়মনসিংহ, জামালপুর, শেরপুর, নেত্রকোণা, টাঙ্গাইল ও কিশোরগঞ্জের রিপোর্টারদের নিয়ে এই সংগঠনটি আত্মপ্রকাশ করেছে।

এতে সভাপতির দায়িত্ব পেয়েছেন বাংলাদেশ সংবাদ সংস্থার (বাসস) সিনিয়র রিপোর্টার এবং ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটি (ডিআরআউ)’র সাবেক সাধারণ সম্পাদক কবির আহমেদ খান এবং সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পেয়েছেন বাংলাদেশ প্রতিদিনের সিনিয়র রিপোর্টার রুকনুজ্জামান অঞ্জন।

সোমবার (২২ মার্চ) রাজধানীর সেগুনবাগিচার একটি রেস্টুরেন্টে জিএমআরএফ এর আত্মপ্রকাশ ও নতুন কমিটি ঘোষণা করা হয়।

৬৩ সদস্য বিশিষ্ট এই কমিটি ঘোষণা করেন টিভি টুডের এডিটর ইন চিফ মনজুরুল আহসান বুলবুল।

এসময় উপস্থিত ছিলেন স্বদেশ প্রতিদিনের সম্পাদক রফিকুল ইসলাম রতন; আজকালের খবরের সম্পাদক ফারুক তালুকদার ও সংবাদ প্রতিদিনের ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক রিমন মাহফুজ।

কমিটির ৬ সহ-সভাপতি হলেন – 

ইলিয়াস হোসেন (এসএটিভি), রফিক মোহাম্মদ (ইনকিলাব), মনিরুল আলম (নিউ নেশন), সীমান্ত খোকন (এনটিভি), মাসুদ ইবনে আইয়ুব কার্জন (ডিবিসি) ও আবু সাঈদ (বাসস)।

কমিটির যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক হলেন –

তারেক সালমান (সাননিউজ), শওকত আলী খান লিথো (ডেইলি সান), ওমর ফারুক (কালের কণ্ঠ), জান্নাতুল ফেরদৌসী পান্না (আমাদের নতুন সময়), মাসুদুল হক (ইউএনবি) ও মাজহারুল আনোয়ার খান শিপু (বাসস)।

সাংগঠনিক সম্পাদকরা হলেন – 

শফিকুল ইসলাম (জনতা), আলতাব হোসেন (যায় যায় দিন), নিখিল মানকিন (জনকণ্ঠ); জাহাঙ্গীর কিরণ (মানবকণ্ঠ), মামুন আব্দুল্লাহ (দেশ রূপান্তর) ও এনায়েত হায়দার শাওন (ডেইলি সান)।

অন্যান্য সম্পাদকরা হলেন –

দপ্তর সম্পাদক ঢাকা পোস্টের মাহফুজুল ইসলাম, সাহিত্য ও সাংস্কৃতিক সম্পাদক আমাদের সময়ের মুহম্মদ আকবর, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক একাত্তর টিভির জেমসন মাহবুব, তথ্য ও প্রযুক্তি সম্পাদক সারাবাংলার সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট এমদাদুল হক তুহিন, আন্তর্জাতিক সম্পাদক জনকণ্ঠের ওয়াজেদ হীরা, সমাজ কল্যাণ সম্পাদক এশিয়ান টিভির রকিবুল ইসলাম মানিক, নারী সম্পাদক জিটিভির রুবিনা ইয়াসমিন (জিটিভি) ও ক্রীড়া সম্পাদক জনকণ্ঠের মিথুন আশরাফ।

কমিটির কার্যনির্বাহী সদস্যরা হলেন –

আজাদ সোলায়মান (জনকণ্ঠ), সাকিলা জেসমিন (চ্যানেল আই), নাজনীন মুন্নী (একাত্তর টিভি), আফজাল বারী (আজকালের খবর), রেজাউল করিম (ফিনান্সিয়াল এক্সেপ্রেস), লাকী আকতার (মোহনা টিভি), মোফাজ্জল হোসেন (ফিনান্সিয়াল এক্সপ্রেস), মমিনুল হক আজাদ (সাবেক যুগান্তর), রাজন ভট্টাচার্য্য (জনকণ্ঠ), ফরহাদ হোসেন (বিজনেস স্ট্যান্ডার্ড), গোলাম মঈনুদ্দিন (বাসস), সুজন কৈরি (আমাদের অর্থনীতি), আবুল কাশেম (বিজনেস স্ট্যান্ডার্ড), জুনায়েদ শাহরিয়ার (চ্যানেল-২৪), রাজীব আহমেদ (সমকাল), মশিউর আহমেদ মাসুম (অবজারভার), শরিফুল আলম (এটিএন বাংলা), মোহাম্মদ আখতার হোসেন (ভোরের ডাক), মোজাম্মেল হক তুহিন (আজকালের খবর), ফজলুল হক মৃধা (জাগো নিউজ), ইকরাম-উদ-দৌলা (বাংলানিউজ), শওকত পলাশ (বিজনেস স্ট্যান্ডার্ড), গোলাম মোস্তফা (জনকণ্ঠ), ইউসুফ আলী (বৈশাখী টিভি), তানভীরুল ইসলাম (ঢাকা পোস্ট), মাহমুদুল হাসান (খোলা কাগজ), ইমরান হাসান মজুমদার (সিটিনিউজ), আবদুল লতিফ রানা (আমার সংবাদ), হাবিবুর রহমান (জনতা), খাদেমুল ইসলাম (বাংলানিউজ), মৃত্তিকা সাহা, নূর মোহাম্মদ (ঢাকা পোস্ট), কামরুল ইসলাম ফকির (সারাবাংলা) ও রুকুনুজ্জামান সেলিম (স্পোর্টস মেইল)।

সংগঠনটির প্রধান পৃষ্ঠপোষক হিসাবে আছেন টিভি ডের এডিটর ইন চিফ মনজুরুল আহসান বুলবুল।

সংগঠনটির উপদেষ্টারা হলেন-

রফিকুল ইসলাম রতন (স্বদেশ প্রতিদিন), সুভাষ চন্দ্র বাদল (বাসস), মলয় সাহা (নিউ এইজ), গাফফার মাহমুদ (ইনকিলাব); আব্দুল মান্নান, মজিবুর রহমান (জনকণ্ঠ), কুদ্দুস আফ্রাদ (আনন্দবাজার); ফারুক তালুকদার (আজকালের খবর), সাখাওয়াত হোসেন বাদশা (আমারবার্তা), জাহিদ নেওয়াজ খান জুয়েল (চ্যানেল আই); বায়েজীদ মিল্কী (একাত্তর টিভি), মাসুদ করিম (যুগান্তর); এম এ মজিদ (বৈশাখী টিভি), জুলফিকার আলী মানিক (বৈশাখী টিভি), রিমন মাহফুজ (সংবাদ প্রতিদিন), জিয়াউর রহমান (অর্থসূচক), মঞ্জুরুল বারী নয়ন (ঢাকা প্রতিদিন); ফখরুল ইসলাম হারুন (প্রথম আলো), বিশ্বজিৎ দত্ত (আমাদেরসময়ডটকম), জীবন ইসলাম (অবজারভার), ফারজানা রুপা (একাত্তর টিভি) ও ফিরোজ মান্না (জনকণ্ঠ)।

কমিটি ঘোষণার সময় মনজুরুল আহসান বুলবুল বলেন, ঢাকাস্থ বৃহত্তর ময়মনসিংহ অঞ্চলের রিপোর্টারদের এই সংগঠন সবার মধ্যে একটি সৌহাদ্যপূর্ণ সম্পর্ক তৈরি করবে।

সংগঠন করার ফলে এ অঞ্চলের রিপোর্টাররা একে অপরের পাশে দাঁড়াতে পারবে।

সংগঠনটির মাধ্যমে আঞ্চলিক মর্যাদা প্রতিষ্ঠিত হবে। দল মতের উর্ধ্বে উঠে বৃহত্তর ময়মনসিংহকে সবার সামনে তুলে ধরতে হবে।

স্বদেশ প্রতিদিনের সম্পাদক রফিকুল ইসলাম রতন বলেন, ঢাকায় বিভিন্ন জেলার রিপোর্টারদের সংগঠন রয়েছে। তাদের অবস্থানও বেশ পোক্ত।

কিন্তু বৃহত্তর ময়মসিংহের রিপোর্টাররা পিছিয়ে ছিল; জিএমআরএফ’র আত্মপ্রকাশের মাধ্যমে সেই শুণ্যতা পূরণ হবে এবং ভবিষ্যতে সংগঠনটি কার্যকর সংগঠনে রূপ নেবে বলে প্রত্যাশা করি। সম্পাদনা – অলক কুমার

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *