ভূঞাপুরে ভ্রাম্যমাণ আদালতে বালু শ্রমিককে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা!! অতপর..

ভূঞাপুর সংবাদদাতা : টাঙ্গাইলের ভূঞাপুরে যমুনা নদী থেকে নৌকায় বালু তোলার সময় আলী আজগর নামের এক দিনমজুরকে ধরে নিয়ে জেল দিয়েছে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মোছা. ইশরাত জাহান।

রোববার (৭ ফেব্রুয়ারি) বিকেলে উপজেলার যমুনা নদীর কোনাবাড়ি এলাকা থেকে তাকে আটক করা হয়।

পরে রাতে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কার্যালয়ে ভ্রাম্যমান আদালত বসিয়ে তাকে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে ৭ দিনের বিনাশ্রম কারাদণ্ড প্রদান করেন ইউএনও মোছা. ইশরাত জাহান।

দণ্ডপ্রাপ্ত আলী আজগর (৪৫) উপজেলার স্থলকাশি গ্রামের আনছের মন্ডলের ছেলে।

এদিকে পরিবারের একমাত্র উপার্জনক্ষম ব্যক্তির জেল হওয়ায় অর্ধাহারে দিন কাটছে দণ্ডপ্রাপ্ত আজগর আলীর পরিবারের।

জানা গেছে, উপজেলার গাবসারার চরাঞ্চলের বাসিন্দা আজগর আলীর ঘরবাড়ি যমুনা নদীর গর্ভে চলে যাওয়ায় পরবর্তিতে গোবিন্দাসী ইউনিয়নের স্থলকাশি এলাকায় অন্যের জায়গায় তিন মেয়ে ও স্ত্রীকে নিয়ে বসবাস করেন।

জীবিকার তাগিদে দিনমুজুর হিসেবে কাজ করেন যমুনা নদী থেকে বালু উত্তোলনের।

এতে তিনি যে টাকা পান তাতেই সংসার চলাতে হিমশিম খেতে হয়। একদিন কাজে না গেলে না খেয়ে থাকতে হয়।

আলী আজগরের স্ত্রী চায়না বেগম বলেন, কাজ শেষে চাল, ডালসহ বাজার করে আসার কথা ছিল; কিন্তু বিকেলেই ইউএনও ম্যাডাম তাকে ধরে নিয়ে গেছে।

খবর পেয়ে রাতেই ছোট মেয়েকে নিয়ে ইউএনও অফিসে গিয়ে ম্যাডামকে অনূনয় বিনয় করলেও তিনি ক্ষমা করেননি; উল্টো জরিমানার ৫০ হাজার টাকা দিতে বলেন।

জরিমানার টাকা দিতে না পারায় তাকে জেলে পাঠিয়ে দেন ইউএনও; এতে পরিবারের একমাত্র উপার্জনক্ষম ব্যক্তি না থাকায় সন্তানদের নিয়ে অর্ধাহারে দিন কাটাচ্ছি।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোছা. ইশরাত জাহান বলেন, যমুনা নদী থেকে অবৈধভাবে বালু উত্তোলনের দায়ে তাকে আটক করা হয়।

পরে ভ্রাম্যমান আদালত বসিয়ে তাকে ৫০ হাজার জরিমানা অনাদায়ে সাতদিনের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দেয়া হয়েছে। এরপর রাতেই ওই দণ্ডিত শ্রমিকের স্ত্রীর হাতে শীতবস্ত্র ও ত্রাণ তুলে দেন ইউএনও।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *